কড়ানজর
  • March 3, 2021
  • Last Update January 31, 2021 2:56 am
  • গাজীপুর

পল্লবী থানায় বোমা বিস্ফোরণ আইএসের দায় স্বীকার , পুলিশের ‘না’

পল্লবী থানায় বোমা বিস্ফোরণ
আইএসের দায় স্বীকার, পুলিশের ‘না’

কড়া নজর প্রতিবেদনঃ
গত বুধবার পল্লবী থানায় বোমা বিস্ফোরণে চারজন পুলিশ সদস্যসহ পাঁচজন আহত হয়। পুলিশ বলছে বুধবার ভোরে তিন সন্ত্রাসীকে অস্ত্র-গুলি ও ওজন মাপার যন্ত্রসহ আটক করা হয়। ওজন যন্ত্রে লুকানো বোমার বিস্ফোরণে
৫ জন আহত ও থানার একটি কক্ষ লণ্ডভন্ড হয়। এদিকে আটকদের পরিবার দাবি করেছে বোমা বিস্ফোরণের তিনদিন আগেই তাদের গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
পল্লবী থানায় ওজন মাপার যন্ত্রে লুকানো বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় যে তিনজনকে গোয়েন্দা পুলিশ রিমান্ডে নিয়েছে, তারা হলেন শহিদুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম এবং মো: মোশাররফ।
অন্যদিকে জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট দাবি করেছে, তারা পল্লবী থানায় ওই বোমা হামলা করেছে।
পুলিশ অবশ্য এ দাবি নাকচ করে দিয়েছে।
বৃহস্পতিবার আদালত তাদের প্রত্যকের ১৪ দিন করে রিমান্ডে মঞ্জুর করেছে।
থানায় বোমা বিস্ফোরণের ঘটনার দু’দিন আগে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে দু’জনের পরিবার অভিযোগ করেছে।
এই অভিযোগ তদন্ত করার কথা বলেছে গোয়েন্দা পুলিশ।
ঘটনার ব্যাপারে পুলিশের বক্তব্য ছিল, বুধবার ভোরে তাদের গ্রেপ্তারের সময় গুলিসহ দু’টি পিস্তল এবং ওজন মাপার যন্ত্র উদ্ধার করে থানায় নেওয়া হয়েছিল এবং সেই ওজন মাপার যন্ত্রে লুকিয়ে রাখা বোমার বিস্ফোরণ ঘটেছিল।
কিন্তু বৃহস্পতিবার আদালতে রিমান্ডে শুনানিতে এই গ্রেপ্তারকৃতদের আইনজীবীর মুল বক্তব্য ছিল, থানায় বোমা বিস্ফোরণের ঘটনার দু’দিন আগে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা হলেও ২৪ ঘন্টার মধ্যে আদালতে হাজির করার বিধান মানা হয়নি।
গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে মিরপুরের কালশি এলাকার বাসিন্দা শহিদুল ইসলাম একটি ব্যক্তি মালিকানাধীন যাত্রীবাহী বাসের চালক। তার স্ত্রী জেসমিন আকতার বলেছেন, তার স্বামীকে গত ২৭ জুলাই বিকেলে সাদা পোশাকে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। সেই ঘটনা তুলে ধরে তারা থানায় জিডি করেছিলেন। কিন্তু বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় তাদের অভিযুক্ত হিসাবে দেখে তারা বিস্মিত হয়েছেন।
‘ঘটনা হচ্ছে, ২৭ তারিখে বিকাল ৩টা ৫২ মিনিটে এলাকার একটা দোকান থেকে আমার স্বামীকে উঠিয়ে নিয়ে গেছে। এলাকার লোকজন বললো যে, এরা ছিল ডিবি পুলিশের লোক। তারপর আমরা ডিবি অফিসে গেলাম, তারা বললো তারা নেয়নি। তখন আমরা থানায় এলাকাবাসীর বর্ণনা অনুযায়ী ঘটনা তুলে ধরে জিডি করলাম।’
জেসমিন আকতার আরও বলেছেন, ‘২৮শে জুলাই আমরা র‍্যাব-৪ এর অফিসে যাই। সেখানেও স্বামীর কোন সন্ধান পাইনি। তিনদিন পর হঠাৎ করে বুধবার টিভিতে দেখলাম যে, আমার স্বামীর ছবি। দেখে সবাই কান্নাকাটি। দেখলাম যে, পল্লবী থানায় বোমা বিস্ফোরণ হইছে, তাতে নাকি সে জড়িত।’
পুলিশের সাবেক একজন আইজি নুরুল হুদা সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ফৌজদারি কার্যবিধি অনুযাী কাউকে আটকের ২৪ ঘন্টার মধ্যে আদালতে হাজির করতে হয়। সেটা করা না হলে তা আইনের লঙ্ঘন হয়।

ঢাকায় পল্লবী থানায় হামলার দায় স্বীকার আইএস’র সাইট ইন্টেলিজেন্স ইসলামিক স্টেট দাবি করেছে, তারা পল্লবী থানায় হামলাটি চালিয়েছে এবং ২০১৯ সালের অগাষ্টের পর তারা এই হামলা করলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *