কড়ানজর
  • January 25, 2022
  • Last Update October 1, 2021 6:00 pm
  • গাজীপুর

কামরাঙ্গীরচরে স্ত্রী ও সন্তানকে হত্যা

কড়ানজর প্রতিবেদকঃ

রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরে স্ত্রী ফুলবাসী রানী দাস (৩৪) ও কন্যা সুমী রানী দাস (১১) কে শ্বাস রোধ করে হত্যার ঘটনায় মোহন্দ্র চন্দ্র দাসকে আসামি করে মামলা করা হয়েছে। রাতে নিহতদের মুখে কীটনাশক ঢেলে শ্বাসরোধে হত্যা করেন মোহন্দ্র চন্দ্র দাস। গতকাল শনিবার (২৪জুলাই) গভীর রাতে মামলাটি করেছেন নিহত ফুলবাসী রানী দাসের বোন বিশাখাবাসী রানী দাস।

দিনমজুর মোহন্দ্র চন্দ্র দাসও কীটনাশক পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। মোহন্দ্রকে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। মহামারির মধ্যে আর্থিক সংকটে পড়ায় তিনি পরিবারের সবাইকে হত্যা ও আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন বলে সন্দেহ পুলিশের।

কামরাঙ্গীরচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গণমাধ্যমকে বলেন, মামলায় একজনকেই আসামি করা হয়েছে। আসামি কীটনাশক পান করেছিলেন।

সে পুলিশকে জানিয়েছে,  মা ও দুই মেয়ে খাটে ঘুমিয়েছিল। মেঝেতে ঘুমিয়েছিলেন মোহন্দ্র। মধ্যরাতে মোহন্দ্র খাটে ফুলবাসী ও সুমীর মাঝখানে গিয়ে ঘুমান। গভীর রাতে সুমীর পা লেগে জুমার ঘুম ভেঙে যায়। জুমা দেখে, তার বাবা পলিথিন দিয়ে সুমীর মুখ আটকে রেখেছেন। লাইট জ্বালিয়ে দেখে, বিছানায় তার মা ও বোনের নিথর দেহ পড়ে আছে। তখন তার চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে যান। প্রতিবেশীরাই ৯৯৯-এ কল করেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, গত শুক্রবার গভীর রাতে কামরাঙ্গীরচরের নয়াগাঁও এলাকার একটি বাসায় ঘুমের মধ্যে ফুলবাসী ও তাঁর মেয়ে সুমী রানী দাসের মুখে কীটনাশক ঢেলে শ্বাসরোধে হত্যা করেছেন মোহন্দ্র চন্দ্র দাস। গতকাল শনিবার সকালে ওই বাসা থেকে ফুলবাসী ও তাঁর মেয়ে সুমীর লাশ উদ্ধার করা হয়। তবে খুনের কারণ সম্পর্কে এজাহারে বিস্তারিত উল্লেখ নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *