কড়ানজর
  • May 11, 2021
  • Last Update May 7, 2021 8:34 pm
  • গাজীপুর

আজ নতুনের আবাহন,অদৃশ্য আততায়ীর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ, সিয়াম সাধনা শুরু


কড়া নজর প্রতিবেদক ঃ
করোনা অতিমারির বিস্তার রোধে আজ বুধবার থেকে সাত দিনের জন্য চলাচলে নিয়ন্ত্রণে ‘কঠোর বিধি-নিষেধ’ শুরু। কঠিন পরীক্ষা শুরুর দিনটি বঙ্গাব্দ ১৪২৩ বর্ষবরণের দিনও। পহেলা বৈশাখ। বাংলা সংস্কৃতির সার্বজনিন ও সবচেয়ে বড় উৎসবের দিন। যদিও পরপর দুই বছর করোনা-সঙ্কটে আনুষ্ঠানিকতা বন্ধ রয়েছে। হিজরি বর্ষের নবম মাস রমজান শুরু। মুসলিম ধর্মাবলম্বিরা এ মাসে সৃষ্টিকর্তার প্রতি আনুগত্যের প্রকাশ হিসাবে সংযম প্রদর্শন করে। করোনাকালে দ্বিতীয় বারের মত রমজান সমাগত। অনেক পরিবারের এবার প্রিয় স্বজনবিহীন রোজা পালন।
‘মঙ্গল শোভাযাত্রা’ নেই, রমনার বটমূল জনশূণ্য; তবুও আজ নববর্ষ ঃ
কালের রীতিতে আজ বাংলা নববর্ষ। কিন্তু রমনার শতবর্ষী বটমূলে বৈশাখের প্রথম প্রত্যুষে ছায়ানটের নববর্ষের আবাহন নেই। বাঙালির আকাক্ষা আর স্বপ্নের সীমাকে বিস্তৃত করার প্রচেষ্টায় নতুন সংযোজন হচ্ছে ‘মঙ্গল শোভাযাত্রা’। চারুকলার সেই ‘মঙ্গল শোভাযাত্রা’ অনুপস্থিত। চারদিকে মৃত্যুর পদধ্বনির মধ্যে উৎসব চলে না। ছায়ানট চেয়েছিল দর্শকশূন্য অবস্থায় হলেও বটমূলে একটা ভিডিও রেকর্ডিং করার। অনুশীলনসহ সকল প্রস্তুতিও চলছিল। কিন্তু সেখানেও করোনার ভয়াল থাবা এসে পড়ে। সংক্রমিত হন শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ অন্ততঃ ১৫ জন। সঙ্গত কারণেই পিছিয়ে আসতে হয়। বটমূলে সরাসরি না হলেও এবারও ধারণকৃত পুরনো ও নতুন কিছু গানের মাধ্যমে ৫০ মিনিটের আয়োজন থাকছে। আজ সকাল ৭টা থেকে বিটিভিসহ ছায়ানটের ফেসবুক পেজ ও ইউটিউবে একযোগ প্রচার হবে। ঐতিহ্য মেনে শুরুটা হবে সংগীতের রাগ দিয়ে আর শেষ হবে জাতীয় সংগীতে।
সংস্কৃতির বিদ্যাপীঠ ছায়ানট ১৯৬৭ সালে রমনার বটমূলে বর্ষবরণ শুরু করে। মুক্তিযুদ্ধের সময় ’৭১ সালে এবং পরপর দুই বছর অতিমারি করোনার কারণে ব্যত্যয় ঘটল। জঙ্গিগোষ্ঠির ২০০১ সালে বটমূলে ভয়াবহ বোমা হামলাও ছায়ানটকে থামাতে পারেনি।
কঠিন দিন শুরু ঃ
অন্যরকম বিশ^যুদ্ধের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে মানব জাতি। উন্নত-অনুন্নত-মধ্যম-দরিদ্র সব শ্রেণীর রাষ্ট্রের, গৌর-তামাটে-কৃষ্ণ বর্ণের, দীর্ঘাঙ্গী-মাঝারি-খাটো-বেটে আকৃতির মানুষ আজ আক্রান্ত। অদৃশ্য আততায়ী। ভাইরাস। অনুজীব ; না জীব, না জড়। কিন্তু মানবজাতি ধ্বংসের উচ্চাভিলাস নিয়ে সর্বত্র বিরাজমান। নিঃশ^াসে অবিশ^াস , জনে জনে দূরত্ব বাড়াচ্ছে। সবচেয়ে আশঙ্কার বিষয়টি হচ্ছে মিউটেশনের মাধ্যমে দেশ কাল ভেদে দ্রæত প্রকরণ পাল্টাচ্ছে। যার ফলে বিশে^র সকল প্রান্তের বিজ্ঞানীদের সমন্বিত গবেষনায় এক বছরের মাথায় যে প্রতিষেধক ‘টিকা’ আবিস্কার হয়েছে – তাও এখন কার্যকারিতা হারাতে বসেছে।
বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসের যে দ্বিতীয় ঢেউ চলছে , এটি প্রথমটির তুলনায় মারাত্মক সংক্রামক ও প্রাণঘাতি। এক বছরেরও বেশি সময় ধওে করোনার সঙ্গে আমাদের বসবাস হলেও বর্তমান সময়টা সবচেয়ে ভয়ানক। এ কারণে মানুষ বাঁচাতে সরকার ‘সর্বাত্মক লকডাউন’ জারি করেছে আজ থেকে সাত দিনের জন্য। পরিস্থিতির উন্নতি না হলে সময় যে বাড়বে কোন সন্দেহ নেই। লকডাউন পালনে নাগরিকরা উদাসিন হলে সেনাবাহিনী নামিয়ে, সান্ধ্য আইন জারি করে পরিস্থিতি সামলানোর ইঙ্গিত পাওয়া গেছে সরকারের নীতি-নির্ধারনী পর্যায় থেকে। সর্বাত্মক বিধিনিষেধের পূর্ব ঘোষণা থেকে সরকার দুই ক্ষেত্রে ছাড় দিয়ে ১৩ দফা নির্দেশনা সম্বলিত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। ছাড় দেওয়া হয়েছে ব্যাংক ও তৈরি পোশাক শিল্প কারখানার ক্ষেত্রে। বেলা ১ টা পর্যন্ত ব্যাংক খোলা রাখার ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে গার্মেন্টস চালু রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে।
পবিত্র মাহে রমজান শুরু ঃ
সোমবার হিজরি ১৪৩৭ সালের রমজান মাসের চাঁদ দেখা যাওয়ায় আজ মঙ্গলবার থেকে শুরু হয়েছে সিয়াম সাধনা। রহমত, মাগফিরাত ও নাজাতের সওগাত নিয়ে বছর ঘুরে আসে পবিত্র মাহে রমজান। রমজান মাসের চাঁদ দেখার পর থেকেই ঘরে ঘরে রোজার প্রস্তুতি শুরু হয়। সোমবার এশার নামাজের পরে প্রথম তারাবির জামাত আদায় করা হয়েছে। শেষ রাতে সেহ্রি খেয়ে রোজা রেখেছেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা। করোনা মহামারির করাল গ্রাস রমজানের ওপরও পড়েছে। রকমারি ইফতারির বাজার,দল বেঁধে তারাবির সালাত আদায় এ সব দেখা যাবে না। চলাফেরায় কঠোর বিধি নিষেধ জারি হওয়ায় স্বল্প আয়ের ও দৈনিক আয়ের ওপর নির্ভরশীল পরিবারগুলোর রমজান মাস কাটবে অতিকষ্টে।
পবিত্র মাহে রমজানের মোবারকবাদ জানিয়ে পৃথক বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাণীতে তাঁরা দেশবাসীসহ মুসলিম উম্মাহকে শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানিয়েছেন। মাসটির পবিত্রতা বজায় রেখে ব্যক্তি ও সমাজজীবনে এ মাসের তাৎপর্যের প্রতিফলন ঘটানোর আহ্বান জানিয়েছেন।
#

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *